Published: 2020-11-14 Views: 1064

হিরো ব্লেয ব্যাবহারিক অভিজ্ঞতা মোঃ মাহি

hero-blaze-bicycle-user-review-by-md-mahi.jpg
আমি মোঃ মাহি,
বর্তমানে কলেজে পড়াশুনা করছি। কলেজে সহ বিভিন্ন জায়গায় পড়াশুনার উদ্দেশ্যে আমাকে যাতায়াত করার প্রয়োজন হয়। কিন্তু কোন যানবাহন হাতের কাছে না থাকার কারনে আমার অনেক অসুবিধার সম্মুখীন হতে হয়। তাই আমি সিদ্ধান্ত নেই একটি সাইকেল কেনার যা আমাকে আমার সময়ও বাচাবে সাথে সাথে যাতায়াত অনেক আরামদায়ক করে তুলবে। কিছু দিন আগে আমার এক বন্ধু একটি মাউন্টেইন বাইক কিনেছে সাইকেলটি দেখে আমার পছন্দ হয় তাই আমিও ঠিক করি একটি মাউন্টেইন বাইক ক্রয় করবো। বাজারে কিছু দিন ঘুরে সকল ব্র্যন্ড এর সাইকেলের দাম বিবেচনা করে আমার কাছে হিরো ব্র্যন্ড এর সাইকেলের দাম কিছুটা কম মনে হয় তাই আমি পরবর্তিতে হিরো সাইকেল ক্রয় করি। মাত্র এক মাস হলো সাইকেলটি ক্রয় করা। ইতি মধ্যেই আমি বেশ কিছু ভালো ও মন্দ দিক খুজে পেয়েছি । সেগুলো আমি আপনাদের মাঝে তুলে ধরতে চাই।

প্রথমত ভালো দিক গুলো হচ্ছেঃ-

-সাইকেলটি চালিয়ে আরাম, কন্ট্রোল অনেক ভালো ।
-সামনে ও পিছনে ডিস্ক ব্রেক থাকায় ব্রেক তাৎক্ষনিক কাজ করে।
-সিটিং পজিশন খুব আরামদায়ক।

খারাপ দিক সমুহঃ-

-গিয়ার শিফটিং অনেক বাজে, ঠিকমতো গিয়ার উঠেনা ও মাঝে মাঝে চাকার স্পোকের সাথে বেধে যায়।

হিরো সাইকেল এর চাহিদা বর্তমানে আমাদের বয়সী ছাত্রদের মাঝে অনেক। শুধু মাউন্টেইন বাইকই নয় বরং বিভিন্ন রকম সাইকেল হিরো ব্র্যন্ড বাজারে নিয়ে আসছে। এই সাইকেলি কেনার পেছনে আমার মুল কারন ছিলো এর আকর্ষনীয় লুক। সাইকেলটি রস্টি কারিং ও ডিজাইন আমার খুব ভালো লেগেছে। তবে বিল্ড কোয়ালিটি আরেকটু ভালো করতে পারতো তারা। কারন পার্টস এর কোয়ালিটি আমার ভালো লাগেনি। কিছু দিন ব্যবহারের পরই আমার প্যডেলে সমস্যা হয়। প্যডেল নরবড়ে হয়ে যায় তাই নতুন আরেকটি প্যডেল লাগাই আমি।। এছাড়াও অল্প কয়দিনেই আমার পেছনের চাকা দুর্বল হয়ে গেছে। বিভিন্ন রকম শব্দ হয় রাইডিং এর সময়। তবে ফ্রেমটি বেশ শক্তপোক্ত লেগেছে আমার কাছে। এই ছিলো আমার হিরো সাইকেলটি চালানোর স্বল্পদিনের অভিজ্ঞতা। আশা করি সকলেই আমার রিভিউ টি পড়ে উপকৃত হবেন।

New Added Bicycles